দোলের দিন খুবই ছোট্ট করে আমাদের রং খেলা

in hive-129948 •  22 days ago 

IMG_20240325_113044.jpg


বছর আমরা দোল উদযাপনে তেমন কোনো বৃহৎ পরিকল্পনা করিনি । খুবই ছোট্ট পরিসরে সামান্য আয়োজনে দোল উদযাপন করেছি । তবে, রং কেনা হয়েছিল হরেক প্রকার । স্বাগতা আর আমার ভাই কিনে এনেছিলো এক গাদা রং, সবই অবশ্য ভেজিটেবল কালার, যাকে বলে হার্বাল কালার । মোট ছ'রকমের আবীর কেনা হয়েছিল । এছাড়াও, স্বাগতার বাবা-মা কয়েকটি কালারের আবীর উপহার দিয়েছিলেন ।

আবীর ছাড়াও স্বাগতা টিনটিনবাবুর জন্য মুখোশ, কালার স্প্রে গান আর পিচকারি কিনে এনেছিল । দোলের দিন ভোরে ঘুম থেকে উঠেই আবীরের থালা, মুখোশ, কালার স্প্রে গান আর পিচকারি নিয়ে সবাই ছাদে চলে গেলুম । সেই সাথে একটা ছোট বালতিও নিয়ে গেলুম সঙ্গে করে । বালতিতে আবীর গুলে পিচকারিতে ভরে সবার গায়ে রং ছিটিয়ে দেব, এই ছিল আমার প্ল্যান ।

প্রথম দফায় সবার মুখে, গায়ে, মাথার চুলে বিভিন্ন রঙের আবীর মাখামাখি চললো বেশ কিছুক্ষণ ধরে । এই আবীর মাখানো বেশ মজার খেলা । দারুন এনজয় করলাম আমরা সবাই মিলে । গোলটুর মুখোশ পরে আমিও কয়েকটি পোজ দিলাম । এরপরে বালতিতে আবীর গুলে পিচকারি আর স্প্রে গান দিয়ে তাই ছেটানোর খেলা চললো আরো বেশ কিছুক্ষণ ধরে । এই সময়টাতে দারুন মজা হলো ।

ছাদময় ছোটাছুটি করে রং মারামারি চললো বেশ কিছুক্ষণ ধরে । স্বাগতা আর টিনটিনবাবু এক পক্ষ আর আমি একা আরেক পক্ষ । ওদের অস্ত্র হলো স্প্রে গান আর আমার অস্ত্র হলো রঙের পিচকিরি । শেষমেশ আমিই হেরে গেলুম । রঙ মেখে পুরো ভূত হয়ে গেলুম ।

এ বছর তনুজা অসুস্থ থাকায় সেই মজাটা আর হয়নি । এমনিতে মাত্র নিউমোনিয়া থেকে উঠলো তার ওপর আগামী অনেকগুলো মাস ধরে তাকে খুবই সাবধানে থাকতে হবে । প্রত্যেক মাসে ডক্টর চেক আপ আছে । এই সময়টাতে বেশি দৌড়ঝাঁপ, স্ট্রেস নেওয়া একদমই বারণ । রং খেলাও এই জন্য এলাউ করিনি আমি । কারণ অনেক রঙে এলার্জি থাকতে পারে । রিস্ক নিয়ে কি হবে ? মাত্র ৭-৮ মাস-ই তো, এরপরে আবার রং টং খেলা যাবে । আসছে বছর ধুমিয়ে রং খেলা হবে ।

রং খেলে ছাদ থেকে নেমে স্নানে গেলুম আর টিনটিন তার দিদিমার সাথে প্রতিবেশীদের রং মাখাতে বাড়ি বাড়ি গেলো । স্বাগতা আর আমার ভাই গেলো লেকটাউন, স্বাগতার বাবার বাড়ি । নিমন্ত্রণ ছিল আমাদের সবার, কিন্তু তনুজার এই সময় একটু দূরের কার জার্নিতে নিষেধাজ্ঞা, তাই আমরা আর গেলুম না । এভাবেই শেষ হলো আমাদের দোলের দিন ।

হোলি হ্যায় !


IMG_20240325_113054.jpg

আবীরে রঙিন আমি ।
তারিখ : ২৫ মার্চ, ২০২৪
সময় : সকাল ১০ টা ০০ মিনিট
স্থান : কোলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।


IMG_20240325_113059.jpg

আবীরে মেখে স্বাগতার সাথে সেলফি ।
তারিখ : ২৫ মার্চ, ২০২৪
সময় : সকাল ১০ টা ১০ মিনিট
স্থান : কোলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।


টিনটিনের রং মাখা চলছে ।
তারিখ : ২৫ মার্চ, ২০২৪
সময় : সকাল ১০ টা ২০ মিনিট
স্থান : কোলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।


আবীর রঙে রঙিন টিনটিন ।
তারিখ : ২৫ মার্চ, ২০২৪
সময় : সকাল ১০ টা ২৫ মিনিট
স্থান : কোলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত ।



ক্যামেরা পরিচিতি : OnePlus
ক্যামেরা মডেল : EB2101
ফোকাল লেংথ : ৫ মিমিঃ


------- ধন্যবাদ -------


পরিশিষ্ট


এই পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে তো যে কোনো এমাউন্ট এর টিপস আনন্দের সহিত গ্রহণীয়

Account QR Code

TTXKunVJb12nkBRwPBq2PZ9787ikEQDQTx (1).png


VOTE @bangla.witness as witness

witness_proxy_vote.png

OR

SET @rme as your proxy


witness_vote.png


steempro....gif

»»——⍟——««

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
Sort Order:  

আপনার চুলে তো দাদা রঙ লাগেনি 🫣। খেলাটা জমেনি তাহলে! স্বাগতা দিদি আর টিনটিনবাবুর কাছেই হেরে বসলেন। টিনটিন বাবু যে খুব মজা করেছে দেখেই বুঝা যাচ্ছে। সারা শরীর রঙ দিয়ে মাখানো। তবে বউদি অসুস্থ জেনে খারাপ লাগলো। বৌদি সুস্থ্য থাকলে আপনাদের রঙ খেলায় জয়েন দিতো। মজাও হতো বেশ।

Thank you, friend!
I'm @steem.history, who is steem witness.
Thank you for witnessvoting for me.
image.png
please click it!
image.png
(Go to https://steemit.com/~witnesses and type fbslo at the bottom of the page)

The weight is reduced because of the lack of Voting Power. If you vote for me as a witness, you can get my little vote.

Congratulations, your post has been upvoted by @nixiee with a 100 % upvote Vote may not be displayed on Steemit due to the current Steemit API issue, but there is a normal upvote record in the blockchain data, so don't worry.

Congratulations, your post has been upvoted by @upex with a 40.90% upvote. We invite you to continue producing quality content and join our Discord community here. Keep up the good work! #upex

দোলের দিন রং খেলা করে দারুন মজা করেছেন। তবে ঐ সময়টাতে বেশি মানুষ থাকলে বেশি মজা হতো। টিন টিন বাবুকে সবাই রং মেখে দিচ্ছে। বড় দিদির জন্য দোয়া রইল। যেন তারতারি সুস্থ হয়ে যায়। ধন্যবাদ দাদা।

বাহ,বাবা ছেলে মিলে ভালোই তো রঙ খেলেছেন। সাথে আবার স্বাগতা দিদিও আছে। সবাইকে নিয়ে রঙ খেলে বেশ মজা করেছেন।তবে আপনার ড্রেসের সাথে মুখোশটা একদম খাপে খাপ,হাহাহা।তবে তনুজা বৌদির অসুস্থতা শুনে খুব খারাপ লাগলো।যাইহোক বৌদির জন্য অনেক দোয়া রইলো। সামনের বছর আবার খেলতে পারবে।

দোলের দিনে পরিবারের সবাই মিলে রং খেলেছেন জেনে বেশ ভালো লাগলো দাদা। বৌদিমনি সুস্থ থাকলে রং খেলাতে আরো বেশি মজা হতো। বৌদি মনির জন্য সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করছি যেনো বৌদি মনিকে তাড়াতাড়ি সম্পূর্ণ সুস্থ করে তোলে। টিনটিন বাবুর মুখোশ নিয়ে আপনিও দেখছি বেশ মজা করে সেলফি উঠেছেন। টিনটিন বাবুকে আবিরের রঙে বেশ দারুন মানিয়েছে। অনেক সুন্দর একটি পোস্ট আমাদের সাথে বিস্তারিতভাবে শেয়ার করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ দাদা।

Posted using SteemPro Mobile

ওদের অস্ত্র হলো স্প্রে গান আর আমার অস্ত্র হলো রঙের পিচকিরি । শেষমেশ আমিই হেরে গেলুম । রঙ মেখে পুরো ভূত হয়ে গেলুম ।

দাদা অবশেষে তাহলে পরাজয় বরণ করে নিয়েছিলেন। দুই জনের সাথে একজন আবার পারে নাকি😂। যাইহোক দোলের দিন আপনারা বেশ মজা করে রং খেলেছিলেন। বৌদি সুস্থ থাকলে তো আরও বেশি মজা হতো। রং মাখা অবস্থায় টিনটিন বাবুকে আরও বেশি কিউট লাগছে। ফটোগ্রাফি গুলো বেশ উপভোগ করলাম দাদা। যাইহোক এতো সুন্দর মুহূর্ত আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে।

Posted using SteemPro Mobile

দোলের উৎসব আপনাদের জীবন রাঙিয়ে দিক, সৌভাগ্য আর সাফল্য বয়ে নিয়ে নিয়ে আসুক। ঘরোয়া ভাবে দোল উৎসব উদযাপন নিয়ে খুব সুন্দর একটি পোস্ট দিয়েছেন দাদা। ভালো লেগেছে পোস্টটি। তনুজা বৌদির দ্রুত পুরোপুরি সুস্থতা কামনা করছি। আশাকরি আগামী বছর বৌদিসহ সবাই মিলে দোল উৎসব আরো জমিয়ে উদযাপন করবেন। টিনটিন বাবুসহ আপনাদের ছবি অনেক সুন্দর হয়েছে। টিনটিন বাবুসহ আপনাদের সবার জন্য শুভ কামনা। দোদের রঙ খেলা নিয়ে পোস্টটি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

@rme hope hope you are doing good in life, I have send you a d.m. on your discord. Regarding a steem proposal. Can you please check. Thank you 🙏.

This is a very nice post, I love the pictures you posted Dada.

I particularly love that of Tintin, I hope you all enjoyed yourselves.

Thank you for sharing this with us 😊❤️❤️❤️

हैलो rme भाई मुझे आपसे कुछ पूछना है
क्या आप मुझे wa.me/8871259892 पे व्हाट्सप्प कर सकते हो

hello dear rme i want to ask some questions from you can you whatsapp me here wa.me/918871259892

বিভিন্ন কালারের রং দেখতে বেশ ভালো লাগে,আমি এই খেলা বেশ দারুন উপভোগ করি, যদি আমি সরাসরি কখনও দেখিনি তবে ফেসবুক টিভি কিংবা নাটকে দেখেছি ভালোই লাগে।পুরো পোস্টে আপনাদের রং মাখা কাহিনী পড়ে বেশ মজা পেলাম।ধন্যবাদ

সবার সাথে দোল উৎসব অনেক আনন্দের সাথে উপভোগ করেছেন দাদা। আসলে বাবা ছেলে মিলে এত আনন্দময় মুহূর্ত, আসলে পরিবারের সবাই মিলে এই উৎসবের সকলেই এক সাথে এই মুহূর্তগুলো উপভোগ করা যায়। আর আপনার ছিলো পিচকারী ওদের ছিল স্প্রে গান যার কারণে আপনি ওদের সাথে পারেনি হেরে গেলেন এবং আপনি একদম রঙ্গে মেখে ভূত হয়ে গেলেন বিষয়টি জানতে পেরে খুবই ভালো লাগলো। আসলেই অনেক সুন্দর মুহূর্ত ছিলো দেখতে অনেক ভালো লেগেছে আমার।

Posted using SteemPro Mobile

সত্যি দাদা দেখে বেশ ভালো লাগলো। যখন পারিবারিক বন্ধনটা সুন্দর থাকে তখন সবকিছু সুন্দর হয়। আপনাদের পারিবারিক বন্ধন টা আমার বেশ ভালই লাগে। আমাদের সবার প্রিয় বৌদির সুস্থতা কামনা করছি। এই বছর আমাদের স্বাগতা বৌদি আছে বেশ ভালো হলো। দুই জন বেশ ভাল মনের মানুষ। আপনাদের পরিবারে স্বাগতা বৌদি যুক্ত হয়েছে এখন ভীষণ মজার একটি সময় যাচ্ছে আপনাদের। সবাই মিলে ছাদে এত সুন্দর রংটং মেখে আনন্দ করলেন বেশ সুন্দর একটি সময় অতিবাহিত করলেন। টিনটিন বাবুর তো বেশ রং মাখামাখি হল।

স্বাগতা আপু আর টিনটিন এর চেয়ে মনে হচ্ছে আপনিই বেশি ভুত হয়েছেন,হাহাহা।কারণ ওনাদের গায়ে তো তেমন কালার দেখা যাচ্ছেনা আর আপনি তো লুকিয়েই রয়েছেন!আর সে সাথে আশা করছি বৌদি এখন নিউমোনিয়ার দুর্বলতাটা কাটিয়ে অনেকটাই সুস্থ আছেন।

Upvoted! Thank you for supporting witness @jswit.

দোলের দিনে আপনাদের রং খেলার অনুভূতি জানতে পেরে খুবই ভালো লাগলো। দাদা দোল উৎসবের মুহূর্তগুলো অসাধারণ। পরিবারের সকলকে সাথে নিয়ে অনেক আনন্দময় মূহুর্ত উপভোগ করেছেন। টিনটিনটি বাবুকে দেখছি উৎসবে একদম মেতে উঠেছে এবং রং দিয়ে যেন একদম অন্যরকম অবস্থা। আসলে আপনারা যে খেলা খেলেছেন সেখানে আপনি হেরে গেছেন, আপনার পিকচারি ছিল তাই।

বেশ দারুণ মজা হয়েছে বোঝা যাচ্ছে। আপনাদের রং মাখামাখির সে দৃশ্যটা দেখতে পারলে বেশ ভালো হোতো। তবে বৌদির জন্য খারাপ লাগছে। অসুস্থতার কারণে তিনি এই মজাটা মিস করলেন। আশা করি সামনের এই হোলি উৎসবে বৌদিকে সাথে নিয়ে আপনারা সকলে মজা করবেন। ধন্যবাদ দাদা।

তনুজা বৌদির জন্য খারাপ লাগতেছে। উনি অসুস্থতার কারণে এবার চিল করতে পারলো না। উনি থাকলে জমে ক্ষীর হয়ে যেতো পুরো পরিবেশটা। দোয়া করি, বৌদি যেনো তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে উঠে।

সবাইকে একসাথে রং খেলতে দেখে খুবই ভালো লাগলো দাদা।তবে টিনটিন বাবুকে বেশি লাগছে।সত্যিই একদম রঙিন বাবু লাগছে।বৌদিকে ফটোগ্রাফিতে দেখলে আরও ভালো লাগতো।অসংখ্য ধন্যবাদ দাদা দোলের দিনে রং খেলার সুন্দর মহূর্ত আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য। আপনার পরিবারের সবার জন্য শুভকামনা রইল।

Posted using SteemPro Mobile

খুব আনন্দ করলেন দাদা।আসলে বিশেষ দিনে বিশেষ আনন্দটুকু না করলেই যেনো নয়।তবে দিদি থাকলে পাশে আনন্দটুকু পুরোপুরি হতো।যাক টিনটিন বাবু তো খুশী। এটাই অনেক।সবাইকে বেশ প্রানবন্ত লেগেছে।এভাবেই হাসি-আনন্দে ভরে থাক আপনাদের চারিপাশ। ধন্যবাদ দাদা সুন্দর অনুভূতি গুলো শেয়ার করার জন্য।

Posted using SteemPro Mobile

দোলের দিনের সময়টা যে আপনাদের বেশ ভালোই কেটেছে, তা কিন্তু ছবিগুলো দেখেই বোঝা যাচ্ছে ভাই। জীবন এভাবেই আনন্দে কাটুক। এটা অবশ্য ভালোই করেছেন, বৌদিকে সঙ্গে না নিয়ে। এমন সময় আবারো ফিরে আসুক, এই প্রত্যাশা ব্যক্ত করছি।

শুভেচ্ছা রইল।

আবিরে রঙিন টিনটিনকে কিন্তু বেশ লাগছে দাদা। আবার মুখোশ পড়া অবস্থায়ও দারুণ লাগছে। সবার আগে সুস্থ‍্যতা। এক্ষেত্রে আপনি বৌদিকে এলাও না করে ঠিকই করেছেন। কখন কী বিপদ হয়ে যায় বলা যায় না। স্বল্প পরিসরে সবাই দোলটা উৎযাপন করেছেন কিন্তু আনন্দের কমতি ছিল না।

Posted using SteemPro Mobile

অল্প করে হলেও কিন্তু দারুণ ইনজয় করেছে দাদা। সেই সাথে টিনটিন বাবুকে কিন্তু অনেক চমৎকার লাগছে। এটা ঠিক বলেছেন বৌদি থাকলে আরো বেশি মজা হত তবে বৌদি যেহেতু অসুস্থ ছিল এখন তার বিশ্রাম টাই বেশি প্রয়োজন, সর্বোপরি আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ দাদা।

ঠিকই বলেছেন দাদা। রং পানি এগুলো থেকে আপাতত দুরে থাকাই বৌর জন্য ভালো। এলার্জি হলো অন্য সমস্যা গুলোর মূল।

গত বছরে দেখেছিলাম বাসার ছাঁদে সবাই মিলে খুব মজা করেছিলেন। এ বছর ও বেশ সুন্দর সময় কেটেছে সবার সাথে। তবে বৌদি থাকলে আরও মজা হতো। আচ্ছা নেক্সট ইয়ার হবে ব্যাপার না। ✌️

এই সিদ্ধান্তটা তুমি ঠিকই নিয়েছো দাদা, এই বছর বৌদিকে রং খেলায় অংশগ্রহণ না করিয়ে। যেহেতু বৌদির শরীর বেশ কিছু দিন যাবত অনেক খারাপ ছিল, তাই উনার রেস্ট নেওয়াটাই অনেক বেশি উচিত বলে আমি মনে করি। তবে তার পরেও স্বাগতা দিদি, তুমি, ছোট দাদা এবং আমাদের সকলের প্রিয় গলটু বাবু যতটা মজা করেছ, সেটা শুনেও বেশ ভালো লাগছে।

ওদের অস্ত্র হলো স্প্রে গান আর আমার অস্ত্র হলো রঙের পিচকিরি । শেষমেশ আমিই হেরে গেলুম । রঙ মেখে পুরো ভূত হয়ে গেলুম ।

হিহি😂😂🤭🤭 গত বছরও অনেকটা এমন হয়েছিল । তুমি প্রত্যেকবারই রঙ খেলায় হেরে যাও দাদা।

বৌদি এ বছর মিস করে গেল রং খেলা। থাক এ সময় রেস্টে থাকাই ভালো। যেহেতু মাত্র অসুস্থ থেকে উঠেছে। আপনারা তো দেখছি রঙে একদম মাখামাখি অবস্থা হয়ে গিয়েছেন। মনে হচ্ছে সব রং টিনটিন বাবুকেই লাগিয়েছেন। এবার মাত্র একটি মুখোশ কেন? গতবার তো রংবেরঙের অনেক সুন্দর মুখোশ দেখেছিলাম। যাইহোক দাদা ভালো লাগলো আপনাদের আনন্দ দেখে।

তাহলে দাদা রং খেলায় দিদি এবং টিনটিন বাবুর কাছে হেরে গিয়েছেন হাহাহাহা। টিনটিন বাবু অনেক বড় হয়ে গিয়েছে অনেকদিন পর দেখে ভালো লাগলো। দোলের দিনে ভালই ইনজয় করেছেন ছাদের উপর গিয়ে । এই ধরনের খেলাগুলোর মধ্যে অনেক মজা রয়েছে । প্রতিযোগিতায় যদি আপনি না হেরে যেতেন তাহলে টিনটিন বাবু অবশ্যই কান্না শুরু করে দিত। ভালোই হয়েছে আপনি হেরে গিয়েছেন।

Posted using SteemPro Mobile

Wow

Posted using SteemPro Mobile

দোলের সময়ে তনুজা দির শরীর ঠিক থাকলে দাদার মুখ হাজার পাওয়ারের রং আর আবীরে মাখিয়ে দিতো। এমন একটা রোগ শরীর অনেকদিন যাবৎ দুর্বল করে রাখে। প্রার্থনা করি তনুজা দি যেন তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে যায়। আসছে বছর ধুমিয়ে সবাই মিলে রং খেলবে।

বৌদি সুস্থ হোক এই কামনা করি।